মোবাইলে অনলাইনে আয় করার ৭ টি সহজ উপায়?(Earn Money On Your Phone)

মোবাইলে অনলাইনে আয় : বন্ধুগণ আপনি কি বাড়িতে বসে অনলাইনে আয় করার চিন্তাভাবনা করছেন,কিন্তু আপনার কাছে কোন কম্পিউটার বা ল্যাপটপ নেই? চিন্তা করার দরকার নেই, আপনার এই স্বপ্ন পূরণ হয়ে যাবে আজ,তাও আবার কোন ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের ছাড়া।

ফ্রেন্ডস ,আপনাদের সকলের পকেটে রয়েছে যে ডিভাইস টা রয়েছে,হয়তো এই পোস্ট টি পড়ছেন সেটার কথা বলছি।হ্যাঁ,আপনি ঠিক ভেবেছেন মোবাইল কে কাজে লাগিয়ে ঘরে বসে একটি ফুল টাইম ইনকাম কিভাবে জেনারেট করবেন তার মেথড বা পন্থা গুলি এই আর্টিকেলে আলোচনা করবো।তাই আজ জেনেনিন কিভাবে আপনি মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করবেন ২০২০ তে।

মোবাইলে অনলাইনে আয়
Earn Money On Your Phone

বন্ধুগণ আপনি হয়তো অনেক ইউটিউব এর ভিডিও বা আর্টিকেল পড়েছেন কিন্তু সঠিক কোন রাস্তা খুঁজে পাননি, তাহলে চিন্তা করবেন না আমি এই আর্টিকেল এটাই চেষ্টা করব যেন আপনাদের লক্ষ্য কে পূরণ করতে আমি সক্ষম হয়।

এই আর্টিকেলটি তাদের সহায়তা করবে যারা ঘরে বসে মোবাইলে আয় শুরু করতে চান,অথবা তাদের বর্তমান ইনকাম টা ডাবল বা মাল্টিপ্লাই করতে চান।

যে কোন ব্যাক্তি যেকোনো পারসেন পৃথিবীর যেকোন জায়গা থেকে এই পন্থা দ্বারা আয় শুরু করতে পারেন।আপনি একজন বিজনেসম্যান হন বা প্রফেশনাল জব করেন অথবা বেকার ঘরে বসে আছেন অথবা একজন স্টুডেন্ট ই হন যেকোনো দেশ থেকে এই মেথড দ্বারা আয় করতে পারবেন

যেকেউ এই অপরচুনিটি কে কাজে লাগিয়ে নিজের স্বপ্নকে পূরণ করতে পারবেন। সফল এবং স্বনির্ভর জীবনযাপন করতে চাইলে এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন এবং সেটি নিজের মধ্যে অ্যাপ্লাই করার চেষ্টা করুন।

এন্ড্রোইড মোবাইলে দিয়ে টাকা আয়? ঘরে বসে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় 2020

ফ্রেন্ডস আজ থেকে আট দশ বছর আগে আমি যখন ইন্টারনেট সঙ্গে পরিচিত হয়, তখন ভারতবর্ষ বা বাংলাদেশের মতো দেশে গুলোতে ইন্টারনেট এত ফেমাস ছিল না। 

তখন মাত্র 7 থেকে 8 পার্সেন্ট লোক ইন্টারনেট ব্যবহার করত এবং ইন্টারনেট সাধারণত কম্পিউটার এর মধ্যে বেশি ব্যবহার করা হতো।

কিন্তু এই চিত্রটা কয়েক বছরের মধ্যেই পাল্টে যায়,হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক,ইউটিউব এই সমস্ত বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং খুব তাড়াতাড়ি গ্রোথ করতে শুরু করে

রিলায়েন্স এর মত নেটওয়ার্ক প্রোভাইডাররা জিও সিম লঞ্চ করে মানুষের ঘরে ঘরে সস্তায় ইন্টারনেট পৌঁছে দেয়।

আজ ভারতবর্ষের মতো দেশে অসংখ্য মানুষের কাছে স্মার্টফোন আছে এবং প্রায় প্রত্যেকেই ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন।

আপনি স্মার্টফোন দিয়ে ইউটিউবে ভিডিও দেখেন,আর্টিক্যাল পড়েন,হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাট করেন আরও বিভিন্ন ধরনের কাজ করেন,কিন্তু সেই মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করা যায় তাহলে কেমন হবে সেটা বলুন তো?

এই ডিজিটাল নেটওয়ার্কিং জগতে অনলাইনে স্মার্টফোনের সাহায্যে ভারতবর্ষে হাজার হাজার লোক প্রচুর টাকা ইনকাম করছেন।

যদি আপনিও এদের মত মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে চান তাহলে নিচে কয়েকটি পয়েন্ট উল্লেখ করব সেগুলো ভালোভাবে পড়ুন-

মোবাইলে টাকা আয়ের ৭ টি সহজ উপায় (Earn Money On Your Phone)

ফ্রেন্ডস আর্টিকেলটি শুরু করার আগে প্রথমে আমি কিছু কথা বলেদি আপনি ইউটিউবে অনেক ভিডিও ও  ব্লগে অনেক আর্টিকেলে দেখতে,পড়তে পাবেন। যেখানে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপস ডাউনলোড করে ইনকাম করতে পারবেন গেম ডাউনলোড করে খেলে, ভিডিও watch করে হাজার হাজার টাকা আয় করা যায় এই ধরণের ভিডিও ইউটউব এ ভুরি ভুরি ।

 এদের কাজ থেকে প্রচুর অ্যাপস এর প্রচার শুনতে পাবেন, কিন্তু এগুলো বেশির ভাগই ফ্রড এগুলো viewers  দেড় আকর্ষণীয় করতে ইউটউব এ ভিডিও তৈরী করে থাকে। সাধারণত এই টপিক এর ভিডিও বেশি করে ইউসার রা ওয়াচ করে সেই জন্য এধরণের ভিডিও বা আর্টিকেল লিখে থাকেন।

তবে আমি এখানে যে ইনফরমেশন গুলো আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করবো সেগুলো ১০০% genuine এবং এখান থেকে ইনকাম করতে হলে আপনাকে যথেষ্ট পরিশ্রম করতে হবে।

যাইহোক,আমি এটাই বলতে চাইছি যে,ওই ধরণের ইউটউব ভিডিও থেকে যতটা পারবেন দূরে থাকার চেষ্টা করবেন।

এখানে কয়েকটি অপরচুনিটি আছে যেগুলা আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব এবং সেগুলোকে আপনি নিজের মধ্যে প্রয়োগ করে এই ডিজিটাল জগতে আশা করি সফল হতে সক্ষম হবেন।

ইন্টারনেট থেকে পয়সা ইনকাম করার দুটো রাস্তা আছে এই  দু’রকম পন্থা অবলম্বন করে আয় করা যায় ।

একটা হচ্ছে shrot trem আর একটা হচ্ছে long term। যেমন আপনি কোন গেম ডাউনলোড করলেন এবং সেই গেম খেলে কিছু পয়সা পেলেন 100 200 500 1000 মাসে এ ধরণের পয়সা আয় করা যায় ।

আর দ্বিতীয় টা হচ্ছে long term যেখানে আপনি প্ল্যানিং করবেন ভাবনা-চিন্তা করে এগোবেন কিন্তু এখানে পয়সা ও সফলতা অনেক বেশি যেটা shrot trem থেকে অনেক গুন্ ভালো। 

আমার এই পোস্টে long term এ আয় করার মেথড বা পন্থা গুলি বেশি আলোচনা করবো তবে দু একটি shrot trem এর পন্থা ও বলে দেব।

মোবাইল দিয়ে ভিডিও তৈরি করুন :

আপনি কখনো ভেবে দেখছেন এই দ্রুত গতিতে বেড়ে চলা ইন্টারনেট জগতে সবথেকে বেশি গ্রোথ কোন জিনিসের মধ্যে হচ্ছে ? আমি বলে দিচ্ছি ভিডিও ইন্ডাস্ট্রি (video industry).

এই ভিডও ইন্ডাস্ট্রি  খুবই দ্রুত গতিতে বাড়ছে। মানুষ আর্টিকেল টেক্সট ফটোজ এই ধরনের কনটেন্ট থেকে ভিডিও কনটেন্ট এর প্রতি প্রচুর ঝুঁকছেন।

আমি এখানে আপনাদের একটা তথ্য বা পরিসংখ্যা দিচ্ছি শুধু ইন্ডিয়াতে 26 কোটি মানুষ প্রত্যেক মাসে ইউটিউব ব্যবহার করেন।

মাত্র দুই বছরে টিকটক এর মতো প্লাটফর্মে কুড়ি কোটিরও বেশি লোক যুক্ত হয়েগেছে।আজ শুধু ইউটিউব এ একমাত্র ভিডিও প্লাটফর্ম নেই,ইউটিউব এর মতো টিকটক,ফেসবুক,স্ন্যাপচ্যাট আরো বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট বেরিয়ে এসেছে যেখানে কোটি কোটি মানুষ যুক্ত হচ্ছেন।

এই সব সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট থেকে ভিডিও রিভিউ দেখে মানুষ অনলাইন থেকে শপিং করছে,ভিডিও দেখে অনলাইন থেকে জ্ঞান অর্জন করছে ,এন্টারটেনমেন্ট করছে,মানুষ ব্র্যান্ডিং করছে প্রচার করছে এড করছে ভিডিও এর মাধ্যমে এবং শেষে মানুষ ভিডিও তৈরী করে ইনকাম করছে।

ইন্টারনেটে এত সংখ্যক দর্শক এর জন্য আপনি কনটেন্ট তৈরি করে কিছু আর্নিং করতে পারবেন তার জন্য আপনার কোন কম্পিউটার বা ল্যাপটপের এর দরকার নেই আপনার মোবাইলে যে ভিডিও ক্যামেরা আছে সেখান থেকে আপনি রেকর্ড করুন।

আপনি যে ফিল্ডে এক্সপার্ট আপনি স্টুডেন্টবা আপনি একজন শিক্ষক আপনার মধ্যে নলেজ আছে সেটাই আপনি ভিডিও বানিয়ে পাবলিকের সঙ্গে শেয়ার করুন।

আপনি ভালো সায়েরি বলে মানুষকে এন্টারটেইনমেন্ট করাতে পারেন, কমেডি করে মানুষকে হাসাতে পারেন,গান গাইতে পড়েন, কুকিং এর ভিডিও বানিয়ে নিজের এক্সপেরিয়েন্স কে ভিডিও দ্বারা শেয়ার করুন ।আপনি যে ফিল্ডে এক্সপার্ট তার ভিডিও বানিয়ে পাবলিক এর সঙ্গে শেয়ার করুন এবং সেখান থেকে ইনকাম করুন।

অনলাইনে বিভিন্ন প্লাটফর্ম আছে যেখানে আপনি ভিডিও শেয়ার করে আয় করতে পারবেন,তবে আমি বলবো আপনি ইউটউব এ একটি চ্যানেল তরী করুন এবং খুব তারাতারি সেখানে ভিডিও আপলোড করতে শুরু করুন।

আপনি একটি ইউটউব চ্যানেল কিভাবে খুলবেন,মোবাইল থেকে ইউটউব এর ভিডিও কিভাবে এডিট করবেন, কিভাবে ইউটউব থেকে আয় করবেন তার বিস্তারিত টিউটোরিয়াল এর লিংক নিচে দেওয়া হলো

Android apps দিয়ে মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন :

বন্ধুগণ আমি আগে যেরকম বললাম অনলাইন থেকে আপনি দুইভাবে ইনকাম করতে পারবেন,সেই ভাবে মোবাইল অ্যাপস এর মাধ্যমে আপনি shrot trem এবং long term দুই ইনকাম করতে পারবেন।

মার্কেটে বহু মোবাইল অ্যাপ আছে যার মাধ্যমে shrot trem আয় করতে পারেবন,যেমন গেম খেলে বা কোনো সার্ভে ফিল করে শর্ট টাইমে কিছু এক্সট্রা পয়সা পকেটে ভরতে পারেন।

কিন্তু আপনি যদি long term এ প্যাসিভ ইনকাম করতে চান,তারও কিছু অ্যাপস আছে যেগুলো থেকে মাসে ২০-৩০ হাজার টাকা করা যায়তবে তার জন্য আপনাকে যথেষ্ট কষ্ট করতে হবে সঙ্গে সঙ্গে রেজাল্ট পাবেন না,কিন্তু এটা ফুলটাইম মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার ভালো পন্থা।

নিচে আমি দুই ধরনের অ্যাপ সম্পর্কে বলব,আপনারা নিজের পছন্দ অনুযায়ী সেই অ্যাপস গুলো ব্যবহার করে শর্ট টাইম বা লং টাইম ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন।

Meesho app : মিশো একটা রিসেলিং অ্যাপ এখানে আপনি নতুন প্রোডাক্ট কে রিসেল করে ইনকাম করতে পারবেন।এই অ্যাপটি সম্পর্কে আরো বিস্তারিত ভাবে বলতে গেলে,

এখানে আপনি অনেকগুলো প্রোডাক্ট পেয়ে যাবেন সেই প্রোডাক্ট গুলা আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপ,ফেসবুকের মধ্যে শেয়ার করতে হবে আপনি আপনার প্রোডাক্ট গুলির রেট নির্ধারিত করবেন,

মানে আপনি কোন প্রোডাক্ট 100 টাকায় কিনলে সেটা আপনি 150, 200 টাকায় রিসেল করতে পারবেন।

Meesho সম্পূর্ণ ফ্রি অ্যাপ,আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে প্লে স্টোর থেকে আজ ই ডাউনলোড করতে পারবেন। প্লে স্টোরে এই অ্যাপটি 10 মিলিয়ন ডাউনলোড হয়ে গেছে, এবং এর রেটিং প্রায় 4.4। এই অ্যাপ এর সাহায্যে long term এ আপনি মাসে 20 হাজার টাকা পর্যন্ত প্যাসিভ মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারবেন।

ফ্যান্টাসি গেম অ্যাপ: এই ধরনের বিভিন্ন অ্যাপ মার্কেটে মজুদ রয়েছে এবং কিছু হয়তো আপনারা অনেকেই জানেন।এই অ্যাপ গুলো থেকে আপনি শর্টাম ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন।

আপনার যদি ক্রিকেট,ফুটবল বা অন্যানো গেম খেলতে খুব ভালো লাগে,মোবাইল এ ক্রিকেট ম্যাচ,ফুটবল ম্যাচ দেখেন তাহলে এই ফ্যান্টাসি অ্যাপস দ্বারা ইনকাম করতে পারবেন,এটা পুরোপুরি ইন্ডিয়াতে লিগেল এবং যদি খেলেন তাহলে অবশ্যই এখান থেকে আয় করা সম্ভব।আমি নিচে কত গুলো অ্যাপ এর নাম বলে দিচ্ছি সেগুলো চেক করতে পারেন-

  • MyTeam 11.
  • Fantasy Power11 App.
  • Dream 11.
  • Howzat.
  • My11Circle.
  • (BONUS) KhelChamps Fantasy.
  • ProSports11.
  • PlayerzPot Fantasy.

instagram app হ্যাঁ আপনি ইনস্টাগ্রাম থেকে আয় করতে পারবেন,এখান থেকে কিভাবে আর্নিং করবেন জেনেনিন -এখানে ভালো ভালো পোস্ট শেয়ার করতে হবে,আস্তে আস্তে আপনার যেমন সাবস্ক্রাইব,ফলোয়ার্স পারবে তখন আপনার এখানে বিভিন্ন স্পন্সরশিপ পাবেন সেখান থেকে আয় করতে পারবেন।

facebook app জি হাঁ ইউটিউব এর মতো এখানেও ভিডিও পাবলিশ করে লং ট্রামে প্যাসিভ ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন।

shop 101 এটা ও একটা রিসেলিং অ্যাপ,আপনি চেক করতে পারেন তবে Meesho এর সঙ্গে যদি এর পার্থক্য করেন তা আমি বলব Meesho অ্যাপ টা বেশি ভালো,তাও আপনি এটা একবার দেখুন ডাউনলোড করে। প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন 5 মিলিয়নের ডাউনলোড হয়েছে।

অনলাইন ইনকাম সাইট- 

swagbuck website : swagbuckএকটি ওয়েবসাইট এটা আপনি  মোবাইল ফোন থেকে খুলতে পারবেন। এর কোন অ্যাপস নেই এখন পর্যন্ত, তবে আপনি নিজের মোবাইলে ক্রোম ব্রাউজার থেকে ওয়েবসাইট সার্চ করলে পেয়েযাবেন।

এখানে আপনি অনেকগুলো সার্ভে পাবেন এগুলা ফিলাপ করলে তার বদলে কিছু পয়সা পাবেন, তবে তার পরিমাণ খুব বেশি না, হ্যাঁ অবশ্য আপনি এখানে শর্ট টাইম কিছু টাকা মোবাইলের সাহায্যে ইনকাম করতে চাইলে একবার দেখতে পারেন।

uc media : ইউসি মিডিয়াতে আপনি নিজের একটা অ্যাকাউন্ট খুলুন ওখানে আপনি ব্লগিং এর মতন ই আর্টিকেল পোস্ট করতে পারেন।

ইউসি ব্রাউজার একটা ফেমাস প্লাটফর্ম ,আপনি দেখবেন যখন uc browser  ওপেন করবেন তখন যে নিউজ গুলা দেখতে পান ওখানে আপনি আপনার নিউজ বা আর্টিকেল post করতে পারেন যত লোক আপনার নিউজ পড়বে ততই আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

তাই এটা আপনার একটা প্যাসিভ ইনকামের রাস্তা হতে পারে ।আপনি ইউসি মিনি টি ওপেন করুন সেখানে সাইন আপ করুন এবং আপনার একাউন্ট অনুমোদিত হয়েগেলে আপনি পোস্ট লেখা আরম্ভ করুন আপনার আর্টিকেল যত বেশি লোকে পড়বে আপনার প্রফিট তত বেশি।

OLX এবং QUIKR এ পুরোনো জিনিস সেল করে ইনকাম করুন?

হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি OLX এবং QUIKR থেকে ইনকাম করতে পারবেন হয়তো আপনার মাথায় আসতে পারে যে  এখান থেকে আবার কিভাবে ইনকাম করবেন?

OLX এবং QUIKR  পুরনো জিনিস গুলো বিক্রি করার জায়গা এখান থেকে আবার কিভাবে ইনকাম করব?

তো দেখুন আমি বলে দিচ্ছি এখানে আপনাকে কোনো নিজের জিনিস বিক্রি করতে হবে না, OLX এবং QUIKR অনেক প্রোডাক্ট সস্তায় সেকেন্ড হ্যান্ড কিনে নিন এবং সেটাই আবার বিক্রি করে অন্য ক্রেতা কে।বুঝতে পারলেন না চুলুন বিস্তারিত ভাবে বলি –

ধরুন আপনি QUIKR এ একটা ফোন দেখলেন যেটা 10 হাজার টাকা দাম আপনি কি করবেন সেই প্রোডাক্টটা  OLX এ 12000 টাকা দিয়ে লিস্ট করে দিলেন যদি কোন ব্যক্তির ওটা পছন্দ হয় বা কিনার ইচ্ছা রাখে তাহলে আপনি কি করবেন ওই প্রোডাক্টটা QUIKR এর কাছ থেকে কিনে সেটা ওই ব্যক্তিকে বিক্রয় করে দেবেন।

সিম্পল কাজ করে আপনি 2000 টাকা আয় করে নিলেন আর এর জন্য আপনার কোন কম্পিউটার এর দরকার পড়বে না। এটা আপনি ঘরে বসে মোবাইল থেকে করতে পারবেন।

এবার এটা বুঝতে পারছেন এটা একটা খুব বড় মার্কেট,এখানে মার্কেটিং এর বিভিন্ন স্ট্র্যাটেজি ফলো করা হয় এই স্ট্র্যাটেজি যদি আপনি বুঝতে পারেন তাহলে এখান থেকে আপনার নিজের প্রফিট বা ফায়দা বের করা খুব কঠিন না।

blogger.com app ইনস্টল করে মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন :

ব্লগ খুবই একটা ভালো পন্থা টাকা ইনকাম করার।এখানে আপনার কোন ইনভেস্টমেন্ট দরকার পরে না,আপনি মোবাইলের মধ্যে ব্লগার অ্যাপ ইন্সটল করুন এবং সেখানে নিজের একটি অ্যাকাউন্ট বানান।

অ্যাকাউন্ট তৈরী হয়ে গেলে আর্টিকেল লেখা শুরু করুন আপনি বাংলা,হিন্দি,ইংরেজিতে যেকোনো ভাষাতে আর্টিকেল লিখে পোস্ট করতে পারেন।আস্তে আস্তে আপনার ব্লগ এ ভিসিটর আসবে বা আপনার আর্টিকেল গুলো যত বেশি পাবলিক পড়বে আপনি সেখানে এড লাগিয়ে টাকা তত বেশি ইনকাম করতে পারেন।

পৃথিবীতে হাজার হাজার মানুষ এবং আমাদের পশ্চিমবঙ্গে ও বাংলাদেশে বহু মানুষ ব্লগারে আর্টিকেল লিখে হাজার হাজার ডলার মাসে আয় করছেন।

এটা একটা ফুল টাইম প্যাসিভ ইনকামের রাস্তা হতে পারে,আপনারা অবশ্যই যারা আর্টিকেল লিখতে ইন্টারেস্ট রাখেন তারা এই  মেথড টা এপলাই করতে পারেন।

অবশেষে এটাই বলবো মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করতে হলে ব্লগ একটি ভালো পন্থা ভিসিট করুন blogger.com

affiliate প্রোগ্রাম দ্বারা মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন ?

জি বন্ধুরা আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না affiliate marketing কি? আমি এর একটি শর্ট ইন্ট্রোডাকশন দিয়ে দিচ্ছি, ইন্টারনেট এর মধ্যে অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা নিজের প্রোডাক্ট কে অনলাইনে সেল করে।

যেমন- অ্যামাজন,ফ্লিপকার্ড,মিন্ত্রা,পেটিএম, প্রত্যেকটা ওয়েবসাইট চাই তাদের সাইট এর সেল আরো বারুক,ইউজাররা বেশি করে প্রোডাক্ট কিনুক তাদের সাইট থেকে। তো এসব সাইটগুলো নিজেদের সেলকে বাড়ানোর জন্য একটা প্রোগ্রাম বার করে এটাই হচ্ছে affiliate প্রোগ্রাম।

অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম কিভাবে কাজ করে সেটা বলে দিচ্ছি-উপরে আমি যে ওয়েবসাইট গুলো উল্লেখ করলাম সেইসব ওয়েবসাইটের অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যদি জয়েন হন এবং তাদের প্রডাক্ট কে আপনি শেয়ার করেন বিভিন্ন সোসাল নেটওয়ার্কিং সাইট এ এবং সেখান থেকে থেকে কেউ সেই প্রডাক্ট কিনলে তার কিছু পরিমান কমিশন আপনি পাবেন এই ভাবে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম কাজ করে।আরো বিস্তারিত জানতে আমার এই টিউটরিয়াল টি পড়ুন (click hare

আপনি বাড়িতে বসে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম দ্বারা অনলাইনে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারেবন। আপনি আমাজন এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম join হতে পারেন। 

freelancing and outsourcing করে মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করুন : 

ফ্রেন্ডস আপনি মোবাইল ফ্রিল্যান্সিং করেও আয় করতে পারবেন, তবে ফ্রিল্যান্সিং এর কোনো কাজ না জানলে একটু বুদ্ধি খাটিয়ে এই প্লাটফর্ম থেকে পয়সা কামিয়ে নিতে পারবেন।

আপনি নিশ্চয় আউটসোর্সিং এর কথা শুনেছেন আউটসোসিং এমন হচ্ছে যারা ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে থাকে তাদের কাজ দেয়।

তা এখানে আপনার কি করণীয়-  আপনি ওই আউটসোর্সিং যারা করছেন সে কোনো কোম্পানি হতে পারে বা কোনো ব্যাক্তি,আপনি তাদের কাছে কাজ নিয়ে ফ্রীলান্সার কে hire করে সেই কাজ করিয়ে নিয়ে কিছু পয়সা কমিয়ে নিতে পারেন।

এখানে আপনি একজন মিডল ম্যান হিসাবে কাজ করবেন।
তো আপনি এখানে প্রফিট কি করে করবেন সেটাও বলে দিচ্ছি,ধরুন কোন কোম্পানির কাছ থেকে আপনি দশ টা কাজ নিলেন প্রত্যেকটা কাজের ধার্য আপনি 7 ডলার করে রাখলেন এবং সেই কাজটি আপনি ফাইবার বা upwork এ কোন ফ্রিল্যান্সার কাছ থেকে 5 ডলার দিয়ে করিয়ে নিলেন, তাহলে এখানে আপনার প্রতিটি কাজে 2 ডলার প্রফিট হল।

এবার বুঝতে পারলেন তো এখানে আপনি কোনো কাজ না করেই টাকা ইনকাম করে নিলেন।এটি করার জন্য আপনি একটি প্রোফাইল বানান ফাইবার বা upwork, এদের apps আপনি মোবাইলে পেয়ে যাবেন।

 ফ্রিল্যান্সিং থেকে কিভাবে আয় করবেন সেটা জানতে হলে এখানে জেনে নিন (click hare)।

আমাদের শেষ কথা,

ফ্রেন্ডস উপরে আমি যে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার মেথড গুলো নিয়ে আলোচনা করলাম,ওই মেথড গুলো নিয়ে ভাবনা চিন্তা করুন,রিসার্চ করুন দেখুন কোন মেথড নিজের মধ্যে এপলাই করলে আপনি সক্ষম হবেন।

উপরে অনেক গুলো কাজ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে, যেটাতে আপনারদক্ষতা সেটা আর বিস্তারিত রিসার্চ করুন যেকোনো বিষয়ের অসংখ ভিডিও ইউটউব এ পেয়ে যাবেন,তারপরে সেটা নিজের মধ্যে উপয়োগ করুন এবং ধৈর্য ধরে প্রফিট না দেখে একনাগাড়ে সেই কাজটি করে যান তাহলে দেখবেন আপনাকে সফল হতে কেউ আটকাতে পারবে না এবং অন্যদের মতো ঘরে বসে মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করেত আপনি ও সক্ষম হবেন।

Subscribe
Notify of
guest
17 Comments
Oldest
Newest Most Voted
Inline Feedbacks
View all comments
Tanjim
Tanjim
October 24, 2020 6:54 PM
Putul Altab
November 17, 2020 5:42 PM

অনেক তথ্যবহুল লেখা। অনেক ধন্যবাদ সুন্দর লেখার জন্য। আমি নিজেও এই ধরণে বিষয় নিয়ে লেখালেখি করছি।

Shuvo
January 6, 2021 10:40 AM

Join

ARUP
January 7, 2021 10:20 AM

Hum

MD Mahin khan
MD Mahin khan
January 20, 2021 9:04 PM

20/01/2021

imon
January 25, 2021 9:09 PM

অনক সুন্দর পোষ্ট করেছেন,

Last edited 6 months ago by imon
রাসেল
May 7, 2021 4:30 PM

সুন্দর লেখা

Sultan Ahmed
Sultan Ahmed
June 7, 2021 9:57 AM

Nice ideas, I can do it.

Prodip
June 7, 2021 8:30 PM

This Article is really helpful

Md.Imran Molla
June 8, 2021 9:30 AM

Hmm

Fahima
Fahima
June 29, 2021 11:47 AM

Yes

Sajid
July 10, 2021 4:09 PM

এই গুরুত্বপূর্ণ পোস্টটি করার জন্য আপনাকে <a href=”https://JukeFun.blogspot.com”> ধন্যবাদ</a>

MD.Rezaul Alam
July 31, 2021 12:54 AM

Hobe

17
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x
Share via
Copy link