৫টি সেরা (website builder)দ্বারা ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করুন?ফ্রি ওয়েবসাইট খোলার নিয়ম।

ফ্রি ওয়েবসাইট খোলার নিয়ম:-অনেক বন্ধুগণ কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট বানানো যায় তার সম্পর্কে জানতে চাইছেন?তাই আমরা এই পোস্টে ওয়েবসাইট খোলার সম্পর্কে আলোচনা করবো।

ফ্রেন্ডস,আমরা যত উন্নত টেকনোলজির দিকে অগ্রসর করছি ইন্টারনেট এর পরিষেবা ততই আমাদের কাছ সহজতর হয়ে আসছে।বর্তমানে খুব সহজেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব,যেটা এক দশক আগে একটি জটিল কাজ ছিল। তাহলে এই আর্টিকেলটি ফলো করুন।

কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট বানানো যায়
5 best free website builder

আজকাল অনেকেই নিজের বিজনেস,পার্সোনাল অথবা ব্লগিং করার জন্য ওয়েবসাইট ওপেন করা চিন্তা ভাবনা করেন।

এখন অনেকেই ইন্টারনেট থেকে উপার্জন করতে চান,তারজন্য ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে একটি ভালো মাধ্যম।

ব্লগিং হচ্ছে এমন প্ল্যাটফর্ম যেখানে লক্ষ লক্ষ মানুষকে নিজের লেখালেখি দ্বারা প্রভাবিত করা যায়।এখানে শুধু মাত্র পোস্ট লিখে দর্শকদের কোন একটি বিষয়ের উপর নিজের মতামত প্রকাশ করা সম্ভব।

ওয়েবসাইট আরো অনেক কয়েকটি কাজে ব্যবহৃত হয়,এর সাহায্যে খুব সহজেই লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে পোঁছানো যায়।

এই প্লাটফর্মে বিভিন্ন প্রোডাক্ট,বিসনেস,মতামত খুব সহজে দর্শকদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন।

এখানে দর্শকেরা আপনার বিজনেস ও প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানতে পারবে ও সেগুলি পাবলিকের কাছে পরিচিতি পাবে।

এককথায় বলতে পারেন,কোন একটি ওয়েবসাইট দ্বারা আপনি বাড়িতে বসেই একগুচ্ছ বড় সংখ্যক ক্রেতা পেয়ে যাবেন।

বর্তমানে বিভিন্ন “website builder” বা “online software” সাহায্যে খুব সহজেই একটি প্রফেশনাল ও সুন্দর ওয়েবসাইট তৈরী করা সম্ভব।

মডার্ন টেকনোলজির আবির্ভাব হওয়াতে এখন উন্নত সফটওয়্যার গুলীর দ্বারা বিনা কোডিং শিখে যেকেউ ওয়েবসাইট তৈরী করতে পারবেন।

এখন সাধারণ মানুষ বাড়িতে কম্পিউটার এর সাহায্যে তার স্কিল ও নলেজকে কাজে লাগিয়ে খুব সহজে ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করে নিচ্ছেন।

ইন্টারনেটের মধ্যে কয়েকটি সুন্দর ওয়েবসাইট বিল্ডার রয়েছে,যেখানে বিনা কোডিং সিখে শুধু “drag-and-drop” ও কপি-পেস্ট ফীচার দ্বারা প্রফেশনাল ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব।

আমরা এই আর্টিকেলে সেইসব কয়েকটি বিল্ডার সম্পর্কে জানবো,যেখানে খুব সহজে প্রফেশনাল ও ফ্রি ওয়েবসাইট ওপেন করতে পারবেন।

আরও পড়ুন –

কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট বানানো যায়?(৫ টি ফ্রি ওয়েবসাইট খোলার নিয়ম)

এখানে আমরা যে সাইট তৈরি প্রসেস গুলি ও website builder গুলির সম্পর্কে আলোচনা করবো সেখানে কোন টেকনিক্যাল নলেজ বা কোডিং সিখা বা জানার প্রয়োজন নেই।

নিচে আলোচনা করা ওয়েবসাইট বিল্ডার গুলি drag & drop ও কপি পেস্ট এডিটর হিসেবে কাজ করে।যেখানে বক্সের মধ্যে থাকা টুল গুলির সাহায্যে ওয়েবসাইট কনস্ট্রাকশন বা বিল্ড করতে হয়।

বন্ধুগণ, এই বিল্ডার গুলির মধ্যে কাজ করতে হয়তো প্রথম কয়েক দিন একটু বুঝতে অসুবিধা হতে পারে,তবে চিন্তা নেই আস্তে আস্তে কয়েকদিন পর পুরো প্রসেস বুঝতে পারবেন।

নিচে দেওয়া বিভিন্ন ওয়েবসাইট তৈরি বিল্ডার গুলো কিভাবে কাজ করে সেগুলি প্রাথমিক স্তরে বুঝতে বিভিন্ন ব্লগ,ইউটিউব ভিডিও দেখুন।

এছাড়া যে সফটওয়্যার থেকে ওয়েবসাইটটি তৈরি করবেন তাদের টিউটোরিয়াল ভিডিও ও ব্লগ পোস্ট গুলি দেখে নলেজ গ্রহণ করুন।

5 Best Free Website Builders

friends ওয়েবসাইট বিল্ডার গুলির সম্পর্কে কথা বলার আগে একটা কথা স্পষ্ট করে দিচ্ছি।

যদি ফ্রিতে নিচে দেওয়া বিল্ডার গুলির সাহায্যে সাইট তৈরী করতে চান,তাহলে আপনাকে কিছু কম্প্রোমাইজ করতে হবে।

  • প্রথমত ওয়েবসাইটের জন্য “premium domain” বা (এড্রেস) এর প্রয়োজন পড়ে সেটি কিনতে হবে।আর ডোমেইন কিনতে না চাইলে এই বিল্ডার গুলির সঙ্গে ফ্রীতে দেওয়া সাব-ডোমেইন নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।
  • দ্বিতীয়ত নিচে দেওয়া বিল্ডার গুলির ফ্রি প্ল্যান নিয়ে সাইট তৈরী করলে তাদের ads আপনার সাইট আসতে পারে। এছাড়া এদের সার্ভিস গুলির সুবিধে লিমিটেড পরিমাণে পাবেন, full-service নিতে হলে এদের পেইড প্ল্যান ক্রয় করতে হবে।

হাঁ তবে,ব্লগার বা ওয়ার্ডপ্রেসর সাহায্যে ওয়েবসাইট তৈরী করলে ads বা কোনো প্ল্যান ক্রয় করতে হবে না।

যদিও নিচে ওই ২টি CMS (wordpress & blogger) প্লাটফর্ম সম্পর্কেও আমরা আলোচনা করব,যেখানে ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্পূর্ণ ফ্রি। 

আরও পড়ুন –

1- Wix -Website Builder

Wix
Wix

Wix হচ্ছে খুব জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট নির্মাতা,যেখানে প্রায় 11 কোটিরও বেশি ইউজার রয়েছে। এই বিল্ডার এর সাহায্যে সহজে drag-and-drop এডিটর ব্যবহার করে একটি সম্পূর্ণ প্রফেশনাল ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়।

WIX বিল্ডার এর মধ্যে খুব সুন্দর সুন্দর টেমপ্লেট,থিম,অফার করে। এগুলির সাহায্যে small businesses, online stores, restaurants,অথবা personal portfolios তৈরি করতে পারবেন।

WIX এর মধ্যে কিছু স্পেশাল ফিচার রয়েছে যেগুলির দ্বারা ওয়েবসাইটএর সুন্দর ডিসাইন করতে পারবেন।এছাড়া কিছু অ্যাডিশনাল app বা টুল দেখতে পাওয়া যায়,

যেগুলি অনেকের preferences কে লক্ষ করে অফার করা হয়।যেমন -এখানে built-in Google Analytics সাহায্যে নিজের ওয়েবসাইট মনিটর করা যায়।

এছাড়া বন্ধুরা আপনারা যদি WIX এর পেইড সার্ভিস ব্যবহার করেন তাহলে তারা আপনার জন্য প্রফেশনাল সাইট তৈরি করে দিবে।

WIX পপুলার বিল্ডার হওয়ার ফলে এখানে সব ধরণের টুল,সার্ভিস ও হেল্প পেতে কোন অসুবিধা হয় না। এই মার্কেটপ্লেসের পুরো ecosystem তৈরী করে ফেলছে যেখানে সবার জন্য যে যেরকম ওয়েবসাইট বানাতে তার সব কিছু এখানে মজুদ রয়েছে।

webiste এড্রেস – wix.com

2- WordPress.com

WordPress.com
WordPress.com

WordPress.org হচ্ছে সবথেকে পপুলার CMS প্লাটফর্ম যেখানে আমাদের মত বহু ব্লগাররা তাদের প্রফেশনাল ওয়েবসাইট বা ব্লগ গুলি এই প্লাটফর্মে ওপেন করে থাকেন।

এটি কোনো বিল্ডার নই এটি সফটওয়্যার ,এখানে সাইট বানাতে হোস্টিং ও ডোমেইন এর দরকার পরে,কারণ এটি একটি CMS সফটওয়্যার এখানে ওয়েবসাইট হোস্ট করার কোনো অপসন নেই।

আমরা নিচে wordpress.org সম্পর্কে আলোচনা করেছি।

তবে, আপনি হোস্টিং ও ফ্রি subdomain লাইফটাইম এর জন্য ফ্রিতে নিতে চাইলে WordPress.com এর প্লাটফর্ম চুষ করতে হবে। এটি হচ্ছে ওয়েবসাইট বিল্ডার।

WordPress.com এ ওয়েবসাইট বিল্ড করতে আপনার একটি অ্যাকাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক। তাই প্রথমেই এখানে একটি নিজের একাউন্ট তৈরি করেনিন।

ওয়ার্ডপ্রেস এর মধ্যে একাউন্ট তৈরী করার পর এখানে step-by-step পোস্টগুলি ফলো করুন,ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড বা এডমিন প্যানেলে পৌঁছে যাবেন যেখানে আপনি ওয়েবসাইটের সবকিছু কন্ট্রোল করতে পারবেন।

এডমিন প্যানেল থেকে ওয়েবসাইটের যেকোনো একটা ডিজাইন যাকে টেমপ্লেট(template)বলা হয় সেটি বেঁছে নিন।ওয়ার্ডপ্রেস ১৯০ টার মত ফ্রী থিম অফার করে সেখান থেকে চুষ করেনিন।

হ্যাঁ তবে এখানে কোন থার্ড পার্টি থিম ও প্লাগিন ইন্সটল করতে পারবেন না। তার জন্য আপনাকে পেইড প্ল্যান ক্রয় করতে হবে।

ফ্রেন্ডস ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ডে যাওয়ার জন্য আপনারা ট্যাগ থেকে“wordpress.com/wp-admin” টাইপ করুন। এছাড়া ইমেইল এড্রেস দিয়েছেন তার মধ্যে একটি লিংক যাবে সেখান থেকেও ওয়ার্ডপ্রেস এডমিন এর মধ্যে যেতে পারেন।

বন্ধুগণ ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ডে বাঁ দিকে ওয়েবসাইট কাস্টমাইজ করা যথা -পোস্ট,পেজ, মিডিয়া,কমেন্ট, সবকিছু এডিট করার অপশন পেয়ে যাবেন।

এছাড়া আপনার ওয়েবসাইট কিরকম পারফরম্যান্স করছে তার স্ট্যাটাস ও এখানে দেখতে পরেন।

আপনারা চাইলে ওয়াডপ্রেস প্রিমিয়াম প্লানে আপগ্রেড করার সুবিধা দেই, যেখানে আপনি আরো ভালো ভালো ফিচারস গুলো উপভোগ করতে পারবেন।

এখানে প্রিমিয়াম প্লান নিলে এরমধ্যে কিছু সুবিধা পাবেন,যেখানে ওয়েবসাইটের জন্য একটি প্রিমিয়াম ডোমেইন যথা -(.com)(.in)(.net) এই ধরনের অ্যাড্রেস বেছে নিতে পারবেন।

এর প্ল্যান গুলি খুব বেশি ব্যয়বহুল নয়,মাসে 200 টাকা থেকে প্রায় শুরু হয়। আপনারা অধিক জানকারি এর প্ল্যান গুলি দেখতে পারেন- wordpress plan and pricing

3- Google Sites

Google Sites
Google Sites

ফ্রেন্ডস, আপনাদের অনেকেই Google Sites সম্পর্কে আগে কখনো শুনেননি।গুগোল সাইটস হচ্ছে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট প্লাটফর্ম যেখানে কাস্টম ডোমেনর সাহায্যে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

যেহুতু গুগোল সাইটস কোন ডোমেইন অফার করে না এবং ওয়েবসাইট বানাতে একটি ডোমেইন বাধ্যতামূলক তাই,

ফ্রী ডোমেইন অফার করে সেই ধরনের সাইট থেকে একটি কাস্টম ডোমেইন রেজিস্টার করেনিন। ইন্টারনেটে এইরকম অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে ভুরিভুরি এই ধরনের অফার পাবেন।

গুগল সাইটস নিজের জিমেইল একাউন্ট দ্বারা ওপেন করার পর নিচে “+” আইকন আছে ওখানে ক্লিক করলে ওয়েবসাইট তৈরী করার এডিটর এর মধ্যে পৌঁছে যাবেন।

এখানে নিজস্ব ওয়েবসাইট পছন্দমত কাস্টমাইজ করার অপশন আছে।

আপনি থিম,টাইটেল,পিকচার,ইউটিউব ভিডিও এম্বেড,অন্যান্য মিডিয়া এই প্লাটফর্ম এর bulder দ্বারা ওয়েবসাইটে মধ্যে অ্যাড করা যায়।

ফ্রেন্ডস,গুগোল সাইট থেকে কোন ব্লগ বা রেগুলার ওয়েবসাইট খুলতে পারবে না।এটি শুধুমাত্র পার্সোনাল পোর্টফোলিও,প্রোফাইল বা ছোট বিজনেস ওনারদের জন্য উপযুক্ত প্লাটফর্ম।

যাদের একটি সাধারণ,সিম্পল ওয়েবসাইটের প্রয়োজন পড়ে তারা এই প্লাটফর্ম থেকে একটি পার্সোনাল ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

এখানে ওয়েবসাইট তৈরী করা খুব বেশী কঠিন না, ড্রাগ এন্ড ড্রপ এডিটর এর সাহায্যে ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়।

তবে আপনার যদি ওয়েবসাইট তৈরি করার কোন নলেজ না থাকে একজন বিগেনার হন,তাহলে ইউটিউব টিউটোরিয়াল ভিডিও গুলির সাহায্য নিতে পারেন।

ওয়েবসাইট এড্রেসsites.google.com

4- Weebly.com

Weebly.com
Weebly.com

Weebly হচ্ছে একটি খুবই জনপ্রিয় ফীচার যুক্ত মর্ডান ওয়েবসাইট বিল্ডার।এই bulder সফটওয়্যারটি wix এর মতো বহু লোকে পছন্দ করে।

Weebly একটি ওপেন সোর্স সফ্টওয়্যার পরিষেবা,যেটি web hosting, domain registration,web design, eCommerce functions, making আরও অন্যান্য পরিষেবা একটি বান্ডিল সাবক্রিস্টিয়ান প্যাকেজে এর মধ্যে প্রদান করে।

ফ্রেন্ডস,wix এর মতো এখানে ওয়েবসাইট তৈরী করা খুব সহজ। এই প্লাটফর্ম Drag & drop ফীচার অফার করে,ফলে যেকেউ সাধারণ মানুষ কোনো টেকনিকাল নলেজ ছাড়া সহজে ওয়েবসাইট তৈরী করতে পারবে।

Weebly তাদের কাস্টোমারদের সুন্দর সুন্দর টেম্পলেট,থিম ও অন্যান্য ফীচার অফার করে যার সাহায্যে খুব সহজে প্রফোশনাল website তৈরী করতে পারবেন।

সাদাহরণত Weebly ecommerce (অনলাইন কেনাকাটা) বিসনেস ওয়েবসাইট তৈরী করার জন্য উপযুক্ত website builder।

weebly অনেগুলি টুল অফার করে,যেগুলি বিসনেস ও ইকমার্স ওয়েবসাইটে প্রয়োজনীয় ফীচার।

যেমন এখানে SEO tools,Google Analytics,PayPal integration, automatic tax calculator, digital gift cards আরও অন্যানো toolsদেখা যায়।

ফ্রেন্ডস,Weebly.com এর মধ্যে আপনার free তে ওয়েবসাইট খুলতে পারবেন,তবে এরমধ্যে কিছু সীমাবদ্ধতা আছে।

weebly এরমধ্যেযে ফীচার গুলি ফ্রীতে অফার করে :-

  • এখানে Free SSL Security অফার করে।
  • website এরজন্য মাত্র 500 mb স্টোরেজ পাবেন।
  • Weebly.com এর sub domain ব্যবহার করতে হবে।
  • এখানে Search Engine Optimization এর টুল দেওয়া হয়।
  • Lead Capture এবং Contact Forms টুল।
  • Chat & Email Support

ফ্রেন্ডস, আপনারা যদি সম্পূর্ণ ফ্রীতে Weebly.com থেকে ওয়েবসাইট তৈরী করেত চান তাহলে উপরে দেওয়া এই ফীচার গুলির মধ্যে সীমাবদ্ধতা থাকবে।

ওয়েবসাইট এড্রেস – weebly.com

5- WordPress.org

WordPress.org
WordPress.org

ফ্রেন্ডস,আমরা উপরে WordPress.com নিয়ে কথা বলেছি,যেটি একটি ওয়েবসাইট bulder ও ডোমেইন ও হোস্টিং সব কিছু একটা প্যাকেজে অফার করে।

কিন্তু এখন আমার WordPress.org সম্পর্কে জানবো,যেটি সম্পূর্ণ ফ্রী CMS (free and open-source content management system)প্লাটফর্ম।

এটি কোনো ওয়েবসাইট বিল্ডার নই ,এটি হচ্ছে একটি ফ্রী সফটওয়্যার। যেটি হোস্টিংয়ের মধ্যে ইনস্টল করতে হয়।

পৃথিবীতে প্রায় ৮0% ওয়েবসাইট এই প্লাটফর্মের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে। এই প্ল্যাটফর্ম থেকে যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট বানাতে পারেন।

ব্লগিং,শপিং,পোর্টফোলিও,পার্সোনাল,বিজনেস সব ধরনের ওয়েবসাইট খুব তৈরি করে কাস্টমাইজ করতে পারবেন। এখানে ওয়েবসাইট কাস্টমাইজ ফাংশন গুলি খুব সহজে, যেগুলিতে শিখতে বেশি সময় লাগে না।

সাধারণত কোনো হোস্টিং বা সার্ভারে WordPress সফটওয়্যার ইনস্টল করার পর তারসঙ্গে ডোমেইন কানেক্ট করে ওয়েবসাইট ওপেন করা হয়।

ওয়ার্ডপ্রেসে সফটওয়্যার এর মধ্যে কাজ করতে একটু টেকনিক্যাল নলেজ এর প্রয়োজন পরে।তবে চিন্তা নেই ইউটিউবে প্রচুর টিউটোরিয়াল ভিডিও আছে, যেগুলি দেখে ভালো নলেজ অর্জন করা যায়।

বন্ধুগণ ওয়াডপ্রেস হচ্ছে একটি ফ্রী সফটওয়্যার,কিন্তু শুধুমাত্র সফটওয়্যার হওয়ার ফলে এটি ইনস্টল করার জন্য সার্ভারের দরকার পরে।

বাজারে অনেক ফ্রি ওয়েব হোস্টিং পাবেন কিন্তু সেগুলি ব্যবহার করতে টেকনিক্যাল নলেজ থাকা দরকার।তাই একটি পেইড প্লান লিলে সেখানে টেকনিক্যাল নলেজ এর দরকার পড়ে না এবং সেই সার্ভারগুলো স্টেবল হয়।

ওয়েবহোস্টিং গুলির control panel থাকে সেখানে ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার ইনস্টল করতে হয়। তারপর হোস্টিংয়ের সঙ্গে কাস্টম ডোমেইন অ্যাড করে ওয়েবসাইট তৈরী হয়।

ফ্রেন্ডস,আপনি যদি একটি প্রফসেনাল ওয়েবসাইট তৈরী করতে চান,তাহলে এই প্লাটফর্ম চুষ করুন। ওয়েবসাইট কাস্টোমাইজ,প্লাগিন,থিম ও টেম্পলেট আরও অন্যান ফীচার এর সাপোর্ট পাবেন।

Note -ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরী করতে হয় তার টিউটোরিয়াল ভিডিও YouTube এ পেয়েযাবেন।

আরও পড়ুনঃ –

আমাদের শেষ কথা,

উপরে আমরা কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট খোলার নিয়ম ও কয়েকটি ওয়েবসাইট বিল্ডার গুলির সম্পর্কে জানলাম। এছাড়া আরও কয়েকটি ওয়েবসাইট বিল্ডার আছে যেগুলি এই আর্টিকেলে তুলে ধরা হয়নি।

আপনারা এই ফ্রি বিল্ডার গুলিও ট্রাই করে দেখতে পারেন- Squarespace, GoDaddy, WebNode, Jimdo, Mozello, Duda, SITE123,WebStarts.

ফ্রেন্ডস আমি আপনাদের সাজেস্ট করবো আপনারা যদি প্রফেশনাল ব্লগ বা পার্সোনাল সাইট খুলার চিন্তা ভাবনা করছেন তাহলে “blogger” বা “wordpress” প্লাটফর্ম চুষ করুন।

এই প্লাটফর্ম দুটির কাস্টোমাইজ, ডিজাইন,টুল,সাপোর্ট,টিউটোরিয়াল সব কিছুর সুবিধে পাবেন।

error: Content is protected !!
Share via
Copy link