ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় ?(৫ টি সহজ আয়ের মাধ্যম)

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় : পৃথিবীর সবথেকে বড় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে ফেসবুক।আপনারা হয়তো জানেন ইউটিউব এ ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করা যায়,কিন্তু এখানে প্রশ্ন হচ্ছে ফেসবুক থেকে কি সেই ভাবে টাকা আয় সম্ভব ?

এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে জি হ্যাঁ, আর এই আর্টিকেলে আমরা ফেসবুকের মাধ্যমে টাকা আয় করার সেই পন্থা গুলো বিস্তারিত জানবো।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়
How to make money on Facebook

ফ্রেন্ডস,আমরা প্রায় প্রত্যেকেই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে ।প্রত্যেক মূহুতে কেউ ইউটিউব থেকে ভিডিও দেখছেন,কেউ ফেসবুক এ নিউজ পড়ছেন আবার কেউ ইনস্টাগ্রাম এ ছবি পোস্ট করছে, আমরা চারিপাশে সোশ্যাল মিডিয়ার মধ্যে আবদ্ধ হয়ে পড়েছি।

বাচ্চা থেকে বয়স্ক যুবক-যুবতী  সবাই এখন সোশ্যাল মিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত।

একটা পরিসংখাই দেখা গেছে একজন ভারতীয় প্রাই আড়াই ঘন্টা সোশ্যাল মিডিয়ার মধ্যে থাকে।এত সংখক লোক যখন সোশ্যাল মিডিয়াই যুক্ত,তাই এখানে ইনকাম করার বহু অপরচুনিটি তৈরী হয়েছে।

একটা সত্য কথা জেনেরাখুন, বেশির ভাগ মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াই মাধ্যমে টাইম পাস করছে,যেটা সোজা ভাবে নিজের টাইম কে নষ্ট করা।

আর কিছু লোক এই সোশ্যাল মিডিয়া থেকে নিজের ফায়দা বার করে নিচ্ছেন।এখান থেকে ইনকামের রাস্তা খুঁজে বার করছেন।

আপনিও কি সবার মতো সোশ্যাল মিডিয়াতে টাইম পাস করতে চান?

অথবা নিজের বুদ্ধি খাটিয়ে এই প্লাটফর্ম থেকে নিজের ফায়দা লুটতে চান?

কিভাবে ফায়দা লুটতে পারবেন তার রাস্তা আমি বলে দেব –

সব থেকে আশ্চর্যজনক কথা হল এই প্লাটফর্ম থেকে পয়সা ইনকাম করতে আপনার কোন ইনভেস্টমেন্ট এর দরকার পরেনা।

আপনার ফলোয়ার বা সাবস্ক্রাইব এর দরকার নেই,কোন ক্যামেরা দরকার নেই,আপনার মোটামুটি এক্সপিরিয়েন্স থাকলেই হবে।এখানে আপনার শুধু দুএকটি জিনিস দরকার পরে,

সেটা হচ্ছে আপনার ডেডিকেশন ,ধৈর্য এবং রিসার্চ।

আমরা এতক্ষন সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম থেকে আয়ের কথা বলছিলাম,তবে আজ এখানে কিভাবে  ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায় সেটা জানবো।

আরো পড়ুন-

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় ? (How to Earn Money From Facebook)

ফেসবুক থেকে পয়সা ইনকাম করা খুব একটা কঠিন কাজ নই, শুধু একটু বুদ্ধি প্রয়োগ করলেই আপনি এখান থেকে নিজের ফায়দা তুলতে পারবেন।

ফেসবুক এমন একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম যার 100 কোটিরও বেশি active ইউজার।তাই এখান থেকে সেই অপর্চুনিটি কে কাজে লাগিয়ে কিববে নিজের ফায়দা তুলবেন সেটাই জানবো  –

ফেসবুক থেকে দ্রুত ইনকাম করার সব থেকে ভালো পন্থা হচ্ছে আপনার নিজের কিছু পয়সাকে ইনভেস্ট করা তারসঙ্গে সময় ও প্রচেষ্টা। এই বিষয় টি নিচে আরো বিস্তারিত আলোচনা করবো।

তবে চিন্তা করবেন না আমি এখানে কিছু এমন মেথড ও বলবো ,যে গুলোতে আপনাদের কোন ইনভেস্টমেন্ট এর দরকার পড়বে নাকিন্তু সেখানে আপনার টাইম এবং ধৈর্য দুটোই দিতে হবে।

ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় (Earn money from Facebook page)

বন্ধুরা ফেসবুক পেজ থেকে আপনি লং ট্রাম এ আর্নিং করতে পারবেন।দেখুন ফেসবুক বিজনেস পেজ থেকে দ্রুত আর্নিং করতে পারবেন না, তবে আপনি কিছু সময় দিলে এখান থেকে ভালো পরিমানে আই করা যায় – তার জন্য আপনার কি করণীয় সেটি বলে দিচ্ছি।

প্রথমত আপনি নিজের fb একাউন্ট থেকে একটা পেজ তৈরি করুন, সেটা করা খুবি সহজ। নিচে দেওয়া আর্টিকেল টি পরে সহজে একটি ফেসবুক পেজ বানিয়ে ফেলুন – ফেসবুক পেজ তৈরি করার নিয়ম।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়
facebook page

আপনি বিভিন্ন পছন্দের টপিক নিয়ে পেজ বানাতে পারেন ।যেমন  কম্পিউটার জ্ঞান সম্বন্ধে পেজ বানাতে পারেন।মোবাইল ফোন সম্পর্কে বানাতে পারেন,গ্যাজেট সম্পর্কে ,অনলাইন শপিং এর পেজ ,আয়ুর্বেদিক মেডিসিন সম্পর্ক হতে পারে,খাওয়া-দাওয়া ,বাচ্চা দের খেলনা সম্পর্কে হতে পারে।

যে টপিক আপনার ভালো লাগে সেটার উপর একটি পেজ বানিয়ে ফেলুন।

এবার সেই পেজে আপনি আর্টিকেল,image,ভিডিও যেকোনো কনটেন্ট সেই টপিক এর উপর পোস্ট দিতে শুরু করুন। 

আপনি সেই পোস্ট গুলো বন্ধুবান্ধব,ফ্যামিলি,আত্মীয়-স্বজন সবার সঙ্গে শেয়ার করতে থাকুন।

আস্তে আস্তে আপনার পেজে লাইক ও ট্রাফিক বাড়লে সেখানে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে পয়সা ইনকাম করতে পারবেন।

এবার অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি সেটা জানতে এখানে ক্লিক করুন

এছাড়া ফেসবুক পেজে যে কনটেন্ট ডেলিভারি করছেন সেই কনটেন্ট বা টপিক রিলেটেড বিভিন্ন কোম্পানি থাকবে ,সেই কোম্পানি গুলো থেকে স্পন্সরশিপ নিয়ে তাদের প্রোডাক্ট কে প্রোমোট করতে পারেন।

আপনার পেজে স্পনসর পোস্ট,স্পনসর ভিডিও পাবলিশ করে কিছু পরিমান  টাকা আয় করে নিতে পারেন।

শেষে একটি টিপস দিচ্ছি,আপনার যদি একের বেশি ফেসবুক পেজ থাকে তাহলে সেগুলো কে গুলো বিক্রি করে বেশ কিছু টাকা এক্সট্রা কমাতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে টাকা আয় করুন (Earn from Facebook Facebook Marketplace)

বন্ধুগণ উপরে যেমন আমি বললাম ফেসবুক পেজ বানিয়ে আয় করার তরিকা।সেইভাবে ফেসবুকের মধ্যে আরেকটি অপরচুনিটি আছে যেটা ব্যবহার করে আপনি কিছু এক্সট্রা পয়সা কামিয়ে নিতে পারবেন।

আশা করি আপনারা সবাই জানেন ফেইসবুক মারকেটপ্লেস কি আর না জানলে আমি বলে দিচ্ছি।

এটা ফেসবুকের একটা সার্ভিস যেখানে আপনি নিজের বা অন্য কারো নুতুন/পুরাতন প্রোডাক্ট কে লিস্ট করতে পারবেন।

ঠিক আমাজন,ফ্লিপকার্ট,olx এর মতো। এই মারকেটপ্লেস থেকে আপনার প্রফিট কিভাবে হবে সেটা জেনে নিন –

ফেসবুকের মাধ্যমে টাকা আয়

Market place দ্বারা টাকা কিভাবে কমাবেন ?

বন্ধুগণ প্লে স্টোরে মধ্যে অনেকগুলো রিসেলিং অ্যাপ পেয়ে যাবেন যেমন- Meesho,Glowroad,Shop 101. আপনি এই সমস্ত অ্যাপ গুলোকে ইন্সটল করেনিন।

তারপর এখানে রেজিস্ট্রেশন করে নিজের ব্যাংক ডিটেলস ইত্যাদি সাবমিট করে দেন।

এই সমস্ত অ্যাপস গুলিতে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন রকম প্রোডাক্ট পেয়ে যাবেন এবং তাদের  ছবিও থাকবে আপনি প্রোডাক্ট গুলোর ছবি ডাউনলোড করে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে সেই ছবিগুলো কে লিস্ট করে দিন।

এবং সেখানে নিজের একটা প্রাইস বেঁধে দিন।এবার অবশ্য এটা আপনি যে রেটে প্রোডাক্টগুলো কিনছেন তার থেকে নিজের লাভ রেখে সেই প্রাইস বসিয়ে দিন, মানে-

ধরুন Meesho থেকে কোনো একটি প্রোডাক্ট ধরুন একটি টি শার্ট 200 টাকায় পাচ্ছেন সেটি মার্কেটপ্লেসে 250 বা 300 টাকা দিয়ে লিস্ট করে দিন। এখানে আপনার 50/100 টাকা প্রফিট থাকবে। এভাবে অনেকগুলো ফটো ফেসবুক মার্কেটপ্লেসের লিস্ট করুন।

এবার যখন কোনো ব্যাক্তি ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে আপনাকে মেসেজ করবে ওই প্রোডাক্টটি কেনার জন্য,তখন  আপনি তার এড্রেস টা Meesho বা যে এপপ্স থেকে সেল করাচ্ছেন সেখানে আপনার প্রাইস সেট করে অর্ডার দিয়ে দিন।

এরপরে এই কোম্পানি গুলো ওই অর্ডার টি সেই এড্রেস এ আপনার নামে ডেলিভার করেদিবে, তারপরে কোম্পানি সেই পেমেন্ট থেকে আপনার কমিশন আপনার ব্যাঙ্ক এ পাঠিয়ে দিবে।

তো এইভাবে আপনি ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে রেসলিং করে আয় করতে পারেন।

বিস্তারিত,আরো পড়ুন ফেসবুক মার্কেট প্লেস এর সম্পর্কে।

Affiliate marketing এর মাধ্যমে আয় ?

ফ্রেন্ডস, আপনি ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে ,fb গ্রপে বা পেজে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারবেন।

আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি না জানেন তাহলে আমি বলে দিচ্ছি- অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে আপনি বিভিন্ন কম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করাতে সাহায্য করবেন,তার বিনিময়ে সেই কোম্পানি আপনাকে কিছু কমিশন দিবে একেই Affiliate marketing বলে।

ইন্ডিয়াতে বহু কোম্পানি আছে যে গুলোর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রম এ join করে তাদের প্রোডাক্ট কে সেল করাতে পারেন।

যেমন- অ্যামাজন,ফ্লিপকার্ড,পেটিএম, মিন্ত্রা, স্নাপডিল এইসব কোম্পানির এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ join হতে চাইলে  তাদের অফসিয়াল ওয়েবসাইটে যান, সেখানে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর পেজ খুঁজে বার করে রেজেস্ট্রেশন করে নিন।

নিচে ছবিতে  উদাহরণ দেখুন কিভাবে আমাজানের ওয়েবসাইটে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রম এর রেজেস্ট্রেশন পেজ খুজে পাবেন। 

ফেসবুক থেকে আয়ের নিয়ম
amazon affilite

কিভাবে অ্যাফিলিয়েট দ্বারা টাকা আয় করবেন ?

আমি ধরে নিলাম আপনি অ্যামাজনর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর জয়েন হয়ে গেছেন,এবার আপনি যেভাবে অ্যামাজন এর প্রোডাক্ট ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে সেল করবেন সেটা বলে দিচ্ছি।

অ্যামাজন এর ভিতরে কোন প্রোডাক্ট সিলেক্ট করুন এবং তার অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক জেনারেট করুন এবার ওই লিঙ্ক থেকে যদি কেউ সেই প্রডাক্ট টা অ্যামাজন থেকে buy করে তাহলে অ্যামাজন আপনাকে তার কিছু পারসেন্ট কমিশন আপনাকে দিবে।

এবার আপনার করণীয় কী-(কিভাবে অ্যামাজনর অ্যাফিলিয়েট করবেন)

ধরুন,কোন একটা নতুন মোবাইল ফোন লঞ্চ করলো তার লিংক জেনারেট করে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে তার ছবি দিয়ে লিস্ট দিয়ে দিন।

যখন কোন লোক আপনাকে ম্যাসেজ করবে,তখন অ্যামাজনের অ্যাফিলিয়েট লিংক টাকে শেয়ার করে দিন

এবার সে যখন অ্যামাজন থেকে সেই মোবাইল বা যেকোনো প্রডাক্টিভ কিনবে তার কিছু পারসেন্ট কমিশন আপনার ব্যাংক একাউন্টে ঢুকে যাবে।আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

ফেসবুক এডস (Facebook ads) 

ফ্রেন্ডস,আমি প্রথমেই আপনাদের বলেছিলাম কিছু পয়সা ইনভেস্ট করলে ফেসবুক থেকে খুব সহজ এবং দ্রুতভাবে টাকা ইনকাম করা যায়, সেই পদ্ধতি টি হচ্ছে ফেসবুক এডস দ্বারা।

এই  মাধ্যম টি ফ্রী না তবে একটু বুদ্ধি খাটিয়ে এখানে কিছু পয়সা ইনভেস্ট করে তার অনেক গুন্ রিটার্ন পেতে পারেন।

আমরা এই টপিকের মধ্যে আলোচনা করবো আপনি ফেসবুক এড কে ব্যবহার করে কিভাবে দ্রুত এবং সবথেকে বেশি আর্নিং করতে পারবেন।

ফ্রেন্ডস একটা কথা জেনে রাখুন ফেসবুক একটা বিশাল ট্রাফিক সোর্স,এই প্লাটফর্ম এ কোটি কোটি মানুষ অ্যাক্টিভ থাকে।

এবার ধরুন আপনার কাছে কোন প্রোডাক্ট আছে হয়তো সেটা অ্যামাজন বা ফ্লিপকার্টের মোবাইল,টি-শার্ট,শাড়ি বা কোন গ্যাজেট হতে পারে বা কোন রিসেলিং অ্যাপ এর প্রোডাক্ট আছে।

এই সমস্ত বিভিন্ন কোম্পানির প্রোডাক্ট এর অ্যাফিলিয়েট লিংক আপনি ফেসবুকে পেজে বা গ্রপে যদি শেয়ার করেন হয়তো অল্প কয়েক জন ইন্টারেস্ট নিলো এবং দুই একটা সেল হলো।  

কিন্তু যদি সেই প্রোডাক্ট টি কিছু পয়সা খরচ করে ফেসবুক এডস দ্বারা  মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ্য ফেসবুক ইউসার কাছে যায়-

এবং যারা সেই প্রোডাক্ট এর উপর ইন্টারেস্ট রাখে তাদের কে ফেইসবুক সেই এড দেখায় তখন আপনার সেল কত টা হবে সেটা আপনি নিশ্চই বুঝতে পারছেন।

আপনি এখানে ঠিক ভাবে এড রান করলে ভালো রকম প্রফিট হবে সেটা নিশ্চই বুঝতে পারছেন।এবার নিচে জেনে নিন কিভাবে ফেসবুক এড রান করতে হয় – 

কিভাবে  ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়

কিভাবে ফেসবুক এডস run করবেন

ফেসবুকে এড রান করতে হলে প্রথমে আপনাকে ফেসবুক বিজনেস ম্যানেজার একটা নিজের অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন।

তার সঙ্গে আপনার একটা ফেসবুক পেজ থাকা অবশ্যই দরকার। পেজ না থাকলে সেটা তৈরি করে নিন, তারপর নিচে লিংকে গিয়ে সেখানে আপনার অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন।

facebook business manager 

এই একাউন্টে গিয়ে নিজের একটা বিজনেস প্রোফাইল তৈরি করুন, এখানে আপনি নিজের অ্যাড রান করবেন।

আমি খুব তাড়াতাড়ি ফেসবুক অ্যাড রান করার বিস্তারিত একটি আর্টিকেল পোস্ট করব তার লিংক আপনি এখানে পেয়ে যাবেন।

তবে, আমি এখানে সংক্ষিপ্ত বলে দিচ্ছি কিভাবে ফেসবুকে এড এর  একাউন্ট সেটআপ করবেন।  

আপনি বিজনেস একাউন্ট টি ওপেন করার পর,সেখানে অ্যাকাউন্ট অপশনে ক্রিয়েট এ নিউ অ্যাড একাউন্ট তৈরি করুন।

তার নাম দিন কারেন্সি মানে দেশের টাকা দিন ডলার বা রুপি এবং টাইম জোন সিলেক্ট করুন (ইন্ডিয়া ,বাংলাদেশ বা যে দেশে এড run করতে চান সেই দেশের টাইম জোন দিন )।

তারপর তৈরি হয়ে গেলে সেখানে নিজের পেমেন্ট মেথড এড করুন। যেকোনো ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড এড করতে হয়।

একবার আপনার অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে আপনার ফেসবুক পেজ এর দরকার পরবে,কেননা এই ফেসবুক পেজ এর সাহায্যে আপনি আপনার এডস রান করবে।

ইউসার রা যে এডস দেখবে সেটা আপনার পেজ এর সাহায্যে দেখতে পাবে।

যায় হোক, দেখুন ফেসবুক ক্যাম্পেইন রান করে আপনার প্রফিট তখনই হবে,যখন কোন প্রোডাক্ট এর উপর 300 টাকার ফেসবুক এডস চালিয়ে 500 টাকা লাভ করছেন। তখনই আপনার 200 টাকা প্রোফিট হবে।

ফেসবুক এ ads রান করে বহু মানুষ পয়সা কামাচ্ছেন।এটা বিশাল একটি মার্কেট,আপনি ও সেই পথ ধরে আয় করতে পারেন।

তবে একটা কথা মনে রাখবেন –

পৃথিবীর বড় বড় কোম্পানি, বড় বড় business man এই মার্কেট কে রিসার্চ করছেন আরো বুঝার চেষ্টা করছেন।আপনি যত বেশি টাইম এবং রিসার্চ করবেন তত বেশি রিটার্ন পেতে পারেন।

একদিনে আপনি কোনো কিছুই বুঝতে পারবেন না।

আস্তে আস্তে ফেসবুক এডস বুঝার চেষ্টা করুন কোথায় কোন এড কাজে আসছে ,কোন প্রোডাক্ট পাবলিক ইন্টারেস্ট নিচ্ছে। একগুলো কে ধীরে ধীরে রিসার্চ করুন ,এর ডাটা কে বুঝতে হবে যার ফলে লাভমান কিন্তু আপনিই হবেন। 

ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করুন।(Earn money by uploading videos on Facebook)

বন্ধুরা, ইউটিউব এর মত ফেসবুকে ও আমরা ভিডিও watch করি। এই  ভিডিও গুলোতে নিশ্চই অ্যাড দেখতে পান। আপনি কি জানেন ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে “monetization” করতে পারবেন, ঠিক ইউটউব এর মতো

কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করা যায়

বন্ধুরা ,এখন এই প্লাটফর্মে ভিডিও আপলোড করে ভালো পরিমান পয়সা কমাতে পারবেন।এখানে ফেসবুক এর নিজস্ব প্রোগ্রম যার নাম Ads break দ্বারা ভিডিও তে  monetization করতে পারবেন।

তাহলে চলুন নিচে এই নিয়ে আরো বিস্তারিত জানি  – 

ফেসবুক ভিডিও মনিটাইজেশন (Facebook Video Monetization

ফেসবুকে মনিটাইজেশন করতে করতে হলে একটা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থাকা দরকার আশা করি আপনাদের সবার সেটা আছেএবং তার সঙ্গে একটা ফেসবুক বিজনেস পেজ থাকা বাধ্যতামূলক।

আপনার ফেসবুক পেজ না থাকলে একটা বিজনেস পেজ তৈরি করে ফেলুন। fb পেজ তৈরি করা খুব সহজ, আমার এই আর্টিকেল পরে একটা পেজ বানিয়ে ফেলুন- ফেসবুক পেজ তৈরি করার নিয়ম।

আপনার পেজ তৈরি হয়েগেলে পেজ টি ওপেন করুন,উপরে মেনুতে পাবলিশিং টুল (Published Tools) বলে যে অপশন টি  দেখতে পাচ্ছেন সেখানে যান

এখানে আপনি যত ভিডিও আপলোড করবেন সব ভিডিও গুলো দেখতে পারবেন।

বাঁদিকে টুলস (Tools) এর নিচে একটা অপশন দেখতে পাবেন ক্রিয়েটর স্টুডিও (Creator Studio) সেখানে ক্লিক করুন।

এবার আপনি ক্রিয়েটর স্টুডিও ড্যাশবোর্ডে চলে যাবেন,এটা ঠিক ইউটিউব ষ্টুডিও র ড্যাশবোর্ড এর মত দেখতে।এখান থেকে আপনি ফেসবুকে ভিডিও পাবলিশ করতে পারবেন।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুকে মনিটাইজেশন চালু করতে হলে তার জন্য আপনাকে কোয়ালিফাই করতে হবে ঠিক ইউটউব এর মতো।

এখানে মিনিমাম আপনার পেজে 10000 লাইক এবং দুই মাসে আপনার ভিডিও তে 30 হাজার এক মিনিটের ভিউ চাই।

এই শর্ত গুলো পুরুন হলে ফেসবুকের কাছে মনিটাইজেশন এর জন্য এপ্লাই করতে পারবেন।আপনার পেজ অপ্প্রভ হয়ে গেলে ভিডিও গুলোতে তে এডস আসা শুরু করবে এবং আপনার আর্নিং ও শুরু হয়ে যাবে। 

জেনে নিন কিভাবে খুব সজজে প্রফেশনাল youtube চ্যানেল খুলবেন?

আমাদের শেষ কথা,

বন্ধুরা,ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় তার ৫ টি মেথড আমি উপরে বিস্তারিত আলোচনা করলাম।

শেষে এটাই বলবো আপনি এই মাধ্যম গুলো স্টাডি করুন রিসার্চ করুন এবং নিজে বুঝার চেষ্টা করুন তার পরে নিজের মধ্যে প্রয়োগ করার চেষ্টা করুন।

আশা করি ধর্জ রাখলে অবশ্যই সফল হবেন।

যাইহোক,আপনাদের যদি এই পোস্ট টি ভালো লাগে বা কিছু জিজ্ঞাসা করার থাকে থাহলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।ধন্যবাদ 

Subscribe
Notify of
guest
8 Comments
Oldest
Newest Most Voted
Inline Feedbacks
View all comments
Plabon Palma
Plabon Palma
June 10, 2020 11:05 AM

Thanks a lot for your advice. I’ll try it as soon as possible. I need your help if possible then help me. It’s my humble request.

Rathindra Das .
June 20, 2020 2:32 PM

I have noted down your article and go through conviniently.would you suggest
any tool or app which can make the process easier. Look forward for your suggestion.

YappoBD Marketing
September 28, 2020 2:19 PM

আপনার পোষ্টটি পড়ে অনেক কিছু জানতে পারলাম। আমাদেরও একটি ব্লগ সাইট আছে যেখানে আমরা প্রায়ই আমাদের ভিজিটরদের নতুন কিছু জানানোর চেষ্ঠা করে থাকি।

Last edited 6 months ago by Jaman
Putul Altab
December 17, 2020 9:28 PM

অনেক তথ্যবহুল লেখা। অনেক ধন্যবাদ সুন্দর লেখার জন্য।আমি নিজেও এই ধরণে বিষয় নিয়ে লেখালেখি করছি ।

মুসা
মুসা
April 7, 2021 9:31 AM

ভাইয়া ফেইসবুক পেইজে যদি অন্য পেইজের ভিডিও শেয়ার করি ডাওনলোড না করে তাহলে কি টাকা আয় করা যাবে??জানাবেন ভাইয়া প্লিজ।

8
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x
Share via
Copy link